শিরোপা জয়ের অপেক্ষা বাড়ল পিএসজি-জুভেন্টাসের

এমন মিসও কী করা সম্ভব, হতবাক পুরো পিএসজি ডাগআউটও। পা লাগালেই বাল জালে জড়াতে পারতেন পিএসজির চপু মটিং গোলটা হলেই কাল লিগ শিরোপা নিশ্চিত করত পিএসজি। শেষ পর্যন্ত স্ট্রাসবুর্গের সাথে ২-২ গোলে ড্র করায় শিরোপার জন্য আরও এক সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে তাদের। অন্যদিকে সিরি আতে নাপোলি-জেনোয়া ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হওয়ায় শিরোপার অপেক্ষা বাড়ল জুভেন্টাসেরও।

এই মৌসুমে পিএসজির সর্বোচ্চ গোলদাতা কিলিয়ান এমবাপ্পের জায়গায় কাল প্রথম একাদশে ছিলেন মটিং। শুরুটাও করেছিলেন দারুণভাবে, ১৩ মিনিটেই কলিন দাগবার বাড়ানো বলে বাঁ পায়ের শটে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। লিড অবশ্য বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি পিএসজি, ২৬ মিনিটে স্ট্রাসবুর্গকে সমতায় ফেরান নুনো দা কস্তা।

এরপরই এলো সেই অবিশ্বাস্য মিসের মুহূর্তটা। ম্যাচের তখন ২৮ মিনিট। ক্রিস্টোফার এনকুকুর শটটা গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে জালে ঢুকেই যাচ্ছিল। গোললাইনের সামনে দাড়িয়ে ছিলেন মটিং। তিনি আলতোভাবে পা লাগিয়ে গোলটা নিশ্চিত করতে চাইছিলেন। কিন্তু হলো তার বিপরীতটা! বল জালে তো জড়ালোই না, উল্টো পোস্টে লেগে ফিরে এলো। অদ্ভুতুড়ে এই মিসের রেশ না কাটটেই ৩৮ মিনিটে পিছিয়ে পড়ে পিএসজি। বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া দারুণ এক শটে বল জালে জড়ান অ্যান্থনি গনকালভেস।

দ্বিতীয়ার্ধে অনেক চেষ্টা করেও গোল পাচ্ছিল না পিএসজি। ৬৯ মিনিটে দানি আলভেসের শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। বদলি হিসেবে নেমে এমবাপ্পেও গোলবঞ্চিত হয়েছেন ৮১ মিনিটে। অবশেষে ৮২ মিনিটে পিএসজিকে ম্যাচে ফেরান থিলো কেহরের। জুলিয়ান ড্রাক্সলারের ক্রসে কেহরেরের হেড জালে জড়ালে সমতা আনে পিএসজি। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে পিএসজিকে শিরোপা এনে দিতে পারতেন এমবাপ্পে, একবার তার শট ঠেকিয়ে দেন স্ট্রাসবুর্গ কিপার, আরেকবার লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় তার শট।

পিএসজির মতো কাল শিরোপা জয়ের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছে জুভেন্টাসও। নাপোলি হারলেই সাত ম্যাচ হাতে রেখেই চ্যাম্পিয়ন হতো তুরিনের ওল্ড লেডিরা। ম্যাচের ৩৪ মিনিটে ড্রায়েস মারটেনসের গোলে এগিয়ে যায় নাপোলি। প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে ডারকো মাচোভিচের গোলে ম্যাচে ফেরে জেনোয়া। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটা ১-১ গোলে ড্র হওয়ায় আরও এক সপ্তাহ শিরোপার জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোদের।

share this news:
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com