নুসরাতের খুনীদের বাঁচাতে একটি গ্রুপ তৎপরতা – রিজভী

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির খুনীদের বাঁচাতে একটি গ্রুপ মাঠে তৎপর রয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ  শনিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

রিজভী বলেন, ‘আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা রাফির খুনীদের বাঁচাতে একটি গ্রুপ নানাভাবে তৎপরতা চালাচ্ছে। যে খবরগুলো ইতিমধ্যে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। সোনাগাজীর সেই মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন শামীম, যুবলীগ নেতা নুর উদ্দিন, জাবেদ হোসেন, জোবায়ের আহমেদ, আব্দুল কাদের, ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা, সোনাগাজী পৌর কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মকসুদুল হক ও প্রভাষক আবছার উদ্দিনের পক্ষে সাফাই গাইতে শুরু করেছে ওই গ্রুপটি।’

তিনি বলেন, ফেনী হলো ক্ষমতাসীন দলের সন্ত্রাসীদের নিরাপদ জনপদ। সেখানে আওয়ামী লীগের গডফাদারদের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রম চলে।তারা তাদের নিজেদের দলের নেতাকেই আগুনে পুড়িয়ে ঝলসিয়ে দিয়েছে। সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য হিসেবে একসময় সারা দেশে আলোচিত হওয়া ফেনীতে রাজনৈতিক হত্যা, গুম, অপহরণ, দিনে-দুপুরে অস্ত্র উঁচিয়ে ছিনতাই, টেন্ডারবাজি, বালুমহাল লুট, বাসস্ট্যান্ডে চাঁদাবাজি, আধিপত্য বিস্তারে অস্ত্রের প্রকাশ্য মহড়া দিয়ে চলেছে।

রাফির বিচার নিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘শুধু আমরা নই, এই আশঙ্কা করেছেন স্বয়ং মহামান্য হাইকোর্টও। খুনীদের কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করলেও ছাত্রলীগ সভাপতি শামীমসহ জড়িত অনেককে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ধরবে কীভাবে যেখানে কতিপয় পুলিশই সেই অপকর্মে সহযোগিতা করে।’

দেশের বিভিন্ন জায়গায় নারী ও শিশু শিক্ষার্থীদের ওপর নির্যাতন একটি চিত্র তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘গতকাল শুক্রবারও বিভিন্ন স্থানে তিন স্কুলছাত্রীসহ পাঁচজনকে ধর্ষণ ও গণর্ধষণের খবর পাওয়া গেছে।’

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে দলের যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স,‌ আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ।

share this news:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *