বিশ্বকাপে ৫০০ রানের সম্ভাবনা দেখছে ইংল্যান্ড!

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে রানবন্যা হবেই। এ ব্যাপারে আর কোনো সন্দেহ নেই। আইসিসির সব প্রতিযোগিতায় ব্যাটিংবান্ধব উইকেট বানানোর নির্দেশনা থাকে ইদানীং। তবু ইংল্যান্ডের প্রথাগত সিমিং কন্ডিশনের কথা চিন্তা করে অনেকেই কিছুটা দ্বিধান্বিত ছিল এ নিয়ে। কিন্তু আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ ও ইংল্যান্ডের পাকিস্তান-ইংল্যান্ড সিরিজের রানবন্যা এ নিয়ে সব সন্দেহ দূর করে দিয়েছে।

ব্যাটিংবান্ধব উইকেটে এ যুগের ব্যাটসম্যানরা যে তাণ্ডব চালাতে পছন্দ করেন সেটা বুঝতে পেরেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলশ ক্রিকেট বোর্ডও। এ কারণে বিশ্বকাপে সমর্থকদের জন্য যে অফিশিয়াল স্কোরকার্ড বানানো হচ্ছে সেখানে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ৫০০ রান লেখার সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে।

ইংল্যান্ডের ভেন্যুগুলোতে চমৎকার একটি প্রথা চালু আছে। দিনের খেলা শেষে বা ম্যাচ শেষে একজন দর্শক চাইলে এক বা দুই পাউন্ড দিয়ে সেদিনের স্কোরবোর্ডটা প্রিন্ট করে নিয়ে যেতে পারেন। সমর্থকদের জন্য এটি একধরনের স্মারক। সেই স্কোরকার্ডেই বর্তমান পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে ইসিবি। ব্রিটিশ পত্রিকা ডেইলি টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, ‘ম্যাচে ভক্তরা যে স্কোরকার্ড কেনে, সেটায় রানের টালি থাকে যাতে টিক দেওয়া যায়। বিশ্বকাপের জন্য প্রথমে ৪০০ পর্যন্ত রানের টালি রাখা হয়েছিল। কিন্তু টুর্নামেন্টের পরিচালক স্টিভ এলওর্দির সঙ্গে আলোচনা করে সবাই বুঝতে পেরেছে এটা ৫০০ পর্যন্ত তুলে আনা দরকার।’

ওয়ানডেতে ৫০০ রানের মতো অবিশ্বাস্য কিছু দেখা গেলে সেটা স্বাগতিক ইংল্যান্ডই হয়তো করে দেখাবে। গত বিশ্বকাপের পর বদলে যাওয়া এ দল ওয়ানডের বিশ্বরেকর্ড দুবার ভেঙেছে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০১৬ সালে ৪৪৪ রান তোলা দলটি ২০১৮ সালে নিজেদের রেকর্ডই ভেঙেছে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়াকে দুঃস্বপ্ন উপহার দিয়ে ৪৮১ রান তুলেছিল ইংল্যান্ড। পাকিস্তানের সঙ্গে চলমান সিরিজেই দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৩৭৩ রান তুলেছিল স্বাগতিক দল। জবাবে পাকিস্তানও কম যায়নি, তুলেছে ৩৬১ রান! তৃতীয় ওয়ানডেতেও একই দৃশ্য দেখা গেছে। পাকিস্তান ৩৫৮ রান করলেও জয়ের দেখা পায়নি। ৫ ওভার হাতে রেখেই সাড়ে তিন শর বেশি রান তাড়া করেছে ইংল্যান্ড। ফলে যেকোনো একটি বিশেষ দিনে ৫০০ রান ওঠার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না কেউ।

টেলিগ্রাফকে ইসিবির প্রধান নির্বাহী টম হ্যারিস বলেছেন, ‘ক্রিকেট প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হচ্ছে। গত রাত (পরশু) এর সেরা উদাহরণ ছিল। এটা পঞ্চম সেরা রান তাড়া করার রেকর্ড। বিশ্বকাপের জন্য আমাদের মাপকাঠি ৫০০তে নিতে হয়েছে। সবগুলো নতুন করে ছাপাতে হয়েছে, কারণ আমাদের ধারণা ওয়ানডেতে ৫০০ রানের সীমা এবারই ভেঙে যাবে।’

share this news:
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com