তীরে এসে তরী ডুবল উইন্ডিজদের

জিমি নিশামের বলে সর্বশক্তি প্রয়োগ করে শট নিলেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। প্রায় ইতিহাস গড়া হয়েই গিয়েছিল। কিন্তু ওখানে কাঁটা হয়ে দাঁড়ালেন ট্রেন্ট বোল্ট। বাউন্ডারি লাইনের একদম শেষ প্রান্ত থেকে তিনি দুর্দান্ত এক ক্যাচ নিলেন। শেষ হতাশায় নুয়ে পড়লেন ব্র্যাথওয়েট। ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি, তাও প্রচণ্ড চাপের মুখে, কিন্তু অমন অর্জনের ঠিক পরেই তীরে এসে তরী ডুবল। নিউজিল্যান্ডের কাছে রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে ৫ রানে হেরে গেল উইন্ডিজ।

ম্যাট হেনরির করা ইনিংসের ৪৮তম ওভারে ২৫ রান নিয়েছিলেন ব্র্যাথওয়েট। ওই ওভারে টানা ৩ ছক্কা আর ১ বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন। প্রতিটি ছক্কা ছিল দেখার মতো। শক্তিমত্তার চরম প্রদর্শনী যাকে বলে। অথচ এটাই শেষ উইকেট। অমন চাপের মুহূর্তে ৮০ বলে সেঞ্চুরি। ৯ চার আর ১ ছক্কায় সাজানো তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিটি। এই সেঞ্চুরিই স্বপ্ন দেখাচ্ছিল উইন্ডিজকে।

৪৯তম ওভারে প্রয়োজনীয় ৮ রান তুলতে হবে। হাতে মাত্র ১ উইকেট। আবার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির হাতছানি। দেখেশুনে খেলে ওভারের চতুর্থ বলে ২ রান নিয়ে সেঞ্চুরি পেয়ে গেলেন। শেষ ব্যাটসম্যান হয়েও বোল্ট, ফার্গুসনদের মতো ফাস্ট বোলারদের ৪ বল ঠেকিয়ে ব্র্যাথওয়েটকে সঙ্গ দিতে চেষ্টা করেছিলেন। ওভারের শেষ বলে সিঙ্গেল নিলেই হতো। কিন্তু ওভারের শেষ বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে উইন্ডিজের স্বপ্ন কবর দিলেন ব্র্যাথওয়েট।

share this news:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *