নরসিংদীতে আগুনে দগ্ধ সেই কলেজছাত্রীর মৃত্যু

নরসিংদীর বীরপুরে ফুপাতো ভাইয়ের দেওয়া আগুনে দগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন রানী বর্মণ (২২) মারা গেছেন। বুধবার (২৬ জুন) ভোর ৬টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তার মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

ফুলনের বাবা যুগেন্ধ বর্মন বলেন, চিকিৎসকরা আমাদের জানিয়েছেন আগুনে ফুলনের শরীরের ২১ শতাংশ পুড়ে যায় এবং মুখে কেরোসিন ঢালার কারণে ফুলনের শ্বাসনালীতে সমস্যা ছিল। এতে তার শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। এজন্য গত বৃহস্পতিবার (২০ জুন) ফুলনের অপারেশন করা হয়। এরপর থেকে ফুলন ভালোই ছিল।

তিনি আরো বলেন, মঙ্গলবার (২৫ জুন) ফুলনের বমি ও শ্বাস নিতে সমস্যা হচ্ছিলো। পরে ১৩ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ভোরে তার মৃত্যু হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক আব্দুল গাফফার বলেন, সকালে ফুলনের বাবা যুগেন্দ্র ফোন করে আমাদের মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ আমরা পরিবারের কাছে হস্তান্তর করবো।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাত ৯ টার দিকে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই বোনের গায়ে আগুন দেন ফুপাতো ভাই ভবতোষ। পরে তাকে রাত পৌনে ১২টার দিকে ঢামেক হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

share this news:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *