ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত: রাজশাহীতে এখনও বিচ্ছিন্ন রেল যোগাযোগ

রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার হলিদাগাছী এলাকায় তেলবাহী ট্রেনের ৯টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। গতকাল বুধবার (১০ জুলাই) সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে সারদা স্টেশন থেকে এক কিলোমিটার রাজশাহীর দিকে এসে ট্রেনটির এসব বগি লাইনচ্যুত হয়।

ঘটনার ১৩ ঘণ্টা পর আজ বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সকাল ৭টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত স্বাভাবিক হয়নি রেল যোগাযোগ। বন্ধ রয়েছে রাজশাহীর সঙ্গে সারা দেশের ট্রেন যোগাযোগ। এ ঘটনায় সহকারী প্রকৌশলী আব্দুর রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। কর্মকর্তারা এরইমধ্যে দুর্ঘটনাকবলিত ট্রেন পরিদর্শন করেছেন। তেলবাহী বগি উদ্ধার কাজ চলছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, রাত ১২টা পর্যন্ত লাইনচ্যুত তেলবাহী ট্রেনের বগি উদ্ধারে তেমন কোনো অগ্রগতি ছিল না। ঘটনাস্থলে রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত থেকে বগিগুলো উদ্ধারের চেষ্টা করছেন। তবে বৃষ্টির কারণে উদ্ধার কাজ বিঘ্নিত হচ্ছে। একই কারণে উদ্ধারকর্মীদের ঘটনাস্থলে উপস্থিত হতে দেরি হয়। তবে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই উদ্ধার কাজ শুরু করে রেল কর্তৃপক্ষ।

বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক (পাকশি) মিজানুর রহমান আজ বৃহস্পতিবার বলেন, সকাল ৭টা পর্যন্ত তিনটি বগি তোলা সম্ভব হয়েছে। এখনো বাকি ছয়টি বগি। এ ছাড়া রেললাইনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রেললাইন মেরামত না করা পর্যন্ত রেল চলাচল স্বাভাবিক হবে না বলে জানান তিনি।

ঘটনা তদন্তে বুধবার রাতে বিভাগীয় ট্রান্সপোর্ট অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুনকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে পশ্চিম রেল কর্তৃপক্ষ। কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পশ্চিম রেলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) খন্দকার শহীদুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, লাইনচ্যুতের ঘটনায় সহকারী প্রকৌশলী আব্দুর রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া রাতের সব ট্রেন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। রাতে যাত্রীদের টিকিটের টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে। লাইনচ্যুত তেলবাহী ট্রেনের বগি উদ্ধারে কাজ চলছে।

রাজশাহী রুটে চলাচলকারী ট্রেনগুলো আব্দুলপুর স্টেশনে আটকা পড়ে আছে। ফলে আন্তঃনগরসহ সবকটি ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয় ঘটেছে।

share this news:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *