শ্রীলঙ্কা সফরের নেতৃত্ব থাকছে মাশরাফি

ত্রিদেশীয় সিরিজে পাওয়া হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি নিয়েই পুরো বিশ্বকাপ খেলে গেছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তবে ফিট না থাকার প্রভাব পড়েছিল তার পারফরম্যান্সে। ৮ ম্যাচ খেলে মাত্র ১ উইকেট আর ১০ ওভারের কোটা পূরণ করতে পেরেছিলেন মাত্র ১ ম্যাচে। এদিকে দলও টুর্নামেন্টে প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হওয়ায় চিরদিকে হইচই এই বুঝি এলো মাশরাফির অবসরের ঘোষণা।

কিন্তু মাশরাফি নিজেই জানিয়ে দেন, এখনই ক্রিকেটকে ছাড়ছেন না তিনি। আরও এক-দেড় বছর ক্রিকেট চালিয়ে যাওয়ার মতো সামর্থ্য আছে তার। তবে বোর্ড যদি বলে তবে অন্য হিসেব। এদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড থেকে জানা যায়, ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির যতদিন ইচ্ছে খেলা চালিয়ে যেতে পারবেন। বোর্ড তার সিদ্ধান্তে পূর্ণ সম্মান দেবে।

দুপক্ষের এমন ইতিবাচক কথাই বোঝা যাচ্ছিল, আরও বেশ কিছুদিন মাশরাফি অধ্যায়ের মধ্যে দিয়েই যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট। এদিকে গতকাল সে বিষয়টি আরও পরিষ্কার করলেন জাতীয় দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন। তিনি জানিয়েছেন, শ্রীলঙ্কা সফরের নেতৃত্ব থাকছে মাশরাফির কাঁধেই।

যদিও ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে লিটন কুমার দাসকে পাচ্ছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। বিয়ের জন্য আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত বোর্ডের কাছে ছুটির আবেদন করেছেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। ছুটিতে থাকায় শ্রীলঙ্কা সিরিজ মিস করবেন বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেরা পারফরমার সাকিব আল হাসানও। পরিবার নিয়ে আপাতত ইতালি আছেন তিনি।

এদিকে ইনজুরি আক্রান্ত মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহীমকে সিরিজে পাওয়া নিয়ে এখনো সন্দিহান বোর্ড। তবে বাশার আশা করছেন খুব দ্রুতই ইতিবাচক সংবাদ পাবেন তারা, ‘কয়েকজন ক্রিকেটারের ইনজুরি সমস্যা আছে। এখনই তাদের রিপোর্ট হাতে আসেনি আমাদের। মাহমুদউল্লাহর ইনজুরি আছে। মাশরাফি-মুশফিকেরও আছে। তবে এখন পর্যন্ত আমার জানা মতে ওরা এই সিরিজ শুরুর আগেই ফিট হয়ে উঠবে।’

মাশরাফির ইনজুরি নিয়ে আলাদাভাবে কথা বলতে গিয়ে ক্রিকেট দলের এই নির্বাচক আরও বলেন, ‘আমার মনে হয় এখন ও ফিট। ওর ফিটনেস ওর উপরেই নির্ভর করে। যদিও খেলতে হলে ওকে ফিটনেস টেস্টে পাস করতে হবে। তবে আমার মনে হচ্ছে, কয়েকদিন সময় পাওয়াতে মাশরাফি এর মধ্যেই ওর ইনজুরি সমস্যা দূর করে ফেলেছে। আশা করছি শ্রীলঙ্কা সফরে সুস্থ মাশরাফিকেই পাবো আমরা।’

প্রসঙ্গত, তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আগামী ২০ জুলাই শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে দেশ ছাড়বে টাইগাররা। তবে তার আগে দেশের মাটিতে কোনো ক্যাম্প করছে না বাংলাদেশ। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি শুরু হবে আগামী ২৬ জুলাই। সিরিজের বাকি ২ ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে ২৮ ও ৩১ জুলাই।

share this news:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *