মোনাজাতকে আইএস স্যালুট বলায় ক্ষমা চাইল বিবিসি

একজন মুসলিমের প্রার্থনার চিহ্নকে (মোনাজাত) সন্ত্রাসবাদী আইএস এর স্যালুট হিসেবে বর্ণনা করায় ক্ষমা চেয়েছে বিবিসি। বিশ্বের মুসলিমরা আল্লাহ্‌-এর একত্ব জানাতে আকাশের দিকে হাত তুলে মোনাজাত করে, যাকে ব্রিটিশ গণমাধ্যমটিতে উপস্থাপিত প্যানোরামা ডকুমেন্টারির একটি পর্বে উপস্থাপিকা স্টেসি ডোলি অজ্ঞাতবশত আইএস স্যালুট হিসেবে অভিহিত করেছিল এবং পরবর্তীতে বিবিসি ডকুমেন্টারিটি থেকে সেই ভুল লাইন মুছে সংশোধনের দাবি জানিয়ে ক্ষমা চায়।

ইসলামিক স্টেটে জঙ্গি সংগঠনে যোগদানের জন্য নিজস্ব দেশ ছেড়ে যেসব নারীরা সিরিয়া গিয়েছিলেন সেই আইএস নারীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন স্টেসি। সোমবার (৫ আগস্ট) রাতে বিবিসি ওয়ান-এ পর্বটি প্রদর্শিত হবার কথা ছিল, যেখানে স্টেসি সিরিয়ায় শিবিরে ভ্রমণকারী নারীদের মোনাজাতকে আইএস স্যালুট হিসেবে উল্লেখ করেন।

রোববার রাতে প্রকাশিত নিউজ এট টেনের একটি পর্বে ট্রেলারটির একটি দৃশ্যে উপস্থাপিকা স্টেসিকে শিবির ছেড়ে যেতে দেখা যায়, সেই দৃশ্যে ‘আইএস নারীদের তর্জনী তুলে মোনাজাত করাকে’ আইএস স্যালুট উল্লেখ করে মন্তব্য করা হয়। এই ইঙ্গিতটির আরও অন্য অর্থ যে ছিল, তা পরিষ্কার করা হয়নি সেই মন্তব্যে।’

আইএস যোদ্ধাদের প্রচারণার চিত্রগুলোতে প্রায়শই একক আঙুলের ইঙ্গিতটি করতে দেখা যায়। তবে, মুসলিম বিরোধী হামলার ব্যবস্থা করে ব্রিটেনভিত্তিক এমন একটি সংগঠন তেলমামা বলছে যে, প্রতীকটি আসলে মুসলমানদের একেশ্বরবাদে প্রতিশ্রুতিবদ্ধতাকে প্রতিনিধিত্ব করে এবং মুসলিম ধর্মে এর বিস্তৃত ব্যবহার রয়েছে।

সংগঠনটি বলছে, ‘তাওহীদ (তাওহীদ) হলো ইসলামের সংজ্ঞায়িত মতবাদ এবং এটা আল্লাহর একত্ববাদ প্রদর্শন করে। এই মৌলিক এবং গুরুত্বপূর্ণ ধারণাটিকে কেবলমাত্র ‘আইএস স্যালুট’- হিসেবে মূল্যায়ন করা গুরুতর ভুল, অজ্ঞতা এবং ক্ষতিকর। এটি আবারও গণমাধ্যমে মুসলমানদের প্রতিনিধিত্বের গুরুত্ব এবং ধর্মীয় সাক্ষরতার উন্নতি ঘটানোর বিস্তৃত প্রয়োজনকে তুলে ধরেছে।’

বিবিসি জানিয়েছে যে, ইতোমধ্যে প্রকাশিত প্রোগ্রাম এবং অনলাইন ক্লিপগুলো সম্পাদনার পাশাপাশি তারা ডোলির ডকুমেন্টারি থেকে সম্প্রচারের আগে প্রাসঙ্গিক ভয়েসওভার সরিয়ে ফেলবে। মিরর এবং সান উভয়ই তাদের ওয়েবসাইটের নিবন্ধগুলোও সম্পাদনা করেছে। এই দুই পত্রিকাতেও মোনাজাতকে আইএস স্যালুট বলে মন্তব্য করেছে।

বিবিসির এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘উত্তর সিরিয়ার একটি কুর্দি নিয়ন্ত্রিত বন্দি শিবিরে নারীদের চিত্রিত ইশারাকে আমরা ভুলভাবে বর্ণনা করেছি। যদিও আইএস তাদের নিজস্ব প্রচারের উদ্দেশ্যে এটি গ্রহণ করার চেষ্টা করেছে, তবে যথার্থতার জন্য আমাদের স্পষ্ট হওয়া উচিত ছিল যে, মুসলিম ধর্মের অনেক লোক এই প্রকাশভঙ্গিকে আল্লাহর একত্ববাদকে বোঝানোর জন্য ব্যবহার করে থাকেন। আমরা এই ত্রুটির জন্য ক্ষমা চাইছি এবং ফুটেজ থেকে এই বিবরণটি সরিয়ে ফেলেছি।’

share this news:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *